Be Trainer! Share Your Knowledge.

Home » Health Tips » স্বাস্থের জন্য কিছু প্রশ্ন ও উত্তর। আপনাদের কাজে আসবে।

স্বাস্থের জন্য কিছু প্রশ্ন ও উত্তর। আপনাদের কাজে আসবে।

প্রিয় ভাই প্রথমে আমার সালাম নেবেন । আশা করি ভালো আছেন । কারণ TrickTuneBD.Com এর সাথে থাকলে সবাই ভালো থাকে । আর আপনাদের দোয়ায় আমি ও ভালো আছি । তাই আজ নিয়ে এলাম আপনাদের জন্য একদম নতুন একটা টপিক। আর কথা বাড়াবো না কাজের কথায় আসি ।

১||স্বাস্থ্য মানে কী ? উঃ স্বাস্থ্য বলতে কেউ কেউ চিকিৎসার কথা বুঝে থাকেন । কেউ কেউ আবার স্বাস্থ্য বলতে বোঝেন মোটাসোটা চেহারা। কিন্তু স্বাস্থ্য সম্বন্ধে এই সব ধারণা ঠিক নয় । মনে রাখা দরকার যে, কেবল অসুখ না হওয়াকে স্বাস্থ্য বলা যায় না। কেবল মাত্র শরীরের দিক থেকে সুস্থ থাকাটাই স্বাস্থ্য নয়, মনের দিক থেকে ভালো থাকাটাও স্বাস্থ্যের মধ্যে পড়ে। আবার সমাজকে বাদ দিয়ে সুস্থভাবে বাঁচা সম্ভব নয়। তাই স্বাস্থ্য মানে হল শারীরিক, মানসিক ও সামাজিক ভাবে সুস্থ থাকা । ২||জনস্বাস্থ্য মানে কী ? উঃ জনস্বাস্থ্য বলতে কোনো একটি এলাকার সব শ্রেণীর জনগণের শারীরিক, মানসিক ও সামাজিক ভাবে সুস্থ থাকা বোঝায়। সেই জন্য জনস্বাস্থ্য বিষয়টির মধ্যে শুধু স্বাস্থ্যের কথা বলা হয় না। এর মধ্যে রয়েছে সংক্রামক রোগ নিয়ন্ত্রণ, প্রজনন ও শিশু স্বাস্থ্য, পরিবার কল্যাণ, রোগ প্রতিষেধক ব্যবস্থা, পুষ্টি, পরিবেশ, বিশুদ্ধ পানীয় জল, ব্যক্তিগত পরিচ্ছন্নতা ইত্যাদি। তাই, কেবল মাত্র নিজের নয়, এলাকার সমস্ত মানুষের এবং পরিবেশের সুস্থ থাকাটাও জনস্বাস্থ্যের আওতায় পড়ে । ৩||স্বাস্থ্যবিধান মানে কী ? উঃ মলমূত্র এবং সবরকম বর্জ্য পদার্থের স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে অপসারণ করা এবং পরিবেশকে পরিচ্ছন্ন রাখা হল স্বাস্থ্যবিধান ব্যবস্থা । স্বাস্থ্যবিধানের মধ্যে পড়ে – স্বাস্থ্যসম্মত শৌচাগার ব্যবহার করা, ধোয়াহীন চুল্লী ব্যবহার করা, নিয়মিত দাত মাজা, নিয়মিত স্নান করা, নিয়মিত নখ কাটা, বাড়ির বাইরে চটি বা জুতো পরে হাটা, যেখানে সেখানে থুতু না ফেলা, নিরাপদ পানীয় জল ব্যবহার করা, জলশোচের পরে এবং খাবার আগে ও পরে সাবান দিয়ে হাত ধোওয়া, ঋতুস্রাবের সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা, পরিষ্কার পোশাক পরা, নোংরা জল নিকাশের ভালো ব্যবস্থা করা, পরিবেশকে জঞ্জালমুক্ত রাখা ইত্যাদি। ৪||একজন গর্ভবতী মহিলাকে কখন স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নাম লেখাতে হবে ? উঃ গর্ভবতী হওয়ার পর যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ঐ মহিলাকে উপ- স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বা প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বা সরকারি হাসপাতালে নাম লেখাতে হবে । তিন মাসের মধ্যে নাম লেখানোই সবচেয়ে ভালো।কোনো গর্ভবতী মহিলা উপ- স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বা প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বা সরকারি হাসপাতালে নাম লেখালে তবেই গর্ভবতীকালীন, প্রসবকালীন এবং প্রসূতিকালীন সরকারি স্বাস্থ্য পরিষেবাগুলি পেতে পারেন । নাম লেখানোর পর গর্ভবতী মহিলার নামে সরকারি স্বাস্থ্য পরিষেবার কার্ড করে দেওয়া হয় । গর্ভবতী মহিলাকে এবং প্রসবের পর শিশুকে কখন কী কী টিকা নিতে হবে এগুলিও সেই কার্ডে লেখা থাকে। নাম লেখানো হলে এলাকায় কত জন মহিলা গর্ভবতী হচ্ছেন বা কত জন শিশুর জন্ম হচ্ছে এবং তাদের মধ্যে কোনো গর্ভবতী মহিলা ও শিশু মারা যাচ্ছেন কিনা সেই বিষয়টিও বোঝা যায় । এলাকার স্বাস্থ্যের অবস্থা বোঝার জন্য এই ধরনের তথ্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। গর্ভবতী মহিলাকে কখনো টিটেনাস টিকা নিতে হবে ? গর্ভবতী হওয়ার পর টিটেনাস টিকা নিলে মা ও শিশুর ধনুষ্টঙ্কার হওয়ার ভয় থাকে না । গর্ভবতী হওয়ার পর যত তাড়াতাড়ি সম্ভব প্রথম বার টিটেনাস টিকা এবং তার ঠিক এক মাস পরে দ্বিতীয় বার টিটেনাস টিকা নিতে হবে । অর্থাৎ গর্ভবতী মহিলাকে অবশ্যই দুই বার টিটেনাস টিকা নিতে হবে। এই টিকা সরকারি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে বিনা ৫||মূল্যে পাওয়া যায়। গর্ভবতী মহিলাকে কয়টি আয়রন বড়ি কীভাবে খেতে হবে ? উঃ গর্ভবতী মহিলাকে রোজ দুপুরে অথবা রাতে খাবার খেয়ে, ভরা পেটে, শোবার আগে, ১টি করে মোট ১০০ টি আয়রন বড়ি খেতে হবে । যে সব গর্ভবতী মহিলার খুব বেশি রক্তাল্পতা আছে, তাদের দুবেলা ১টি করে রোজ ২টি বড়ি, খাবার খাওয়ার পরে, ভরা পেটে খেতে হবে । তারপর শুয়ে বিশ্রাম নিতে হবে । অনেক সময় খালি পেটে আয়রন বড়ি খেলে বমি আসে, তাই খালি পেটে এটি খাওয়া উচিত নয়। আবার কারুর কারুর ক্ষেত্রে প্রথম কয়েক দিন একটু বমি বমি ভাব আসে, কিন্তু ভরা পেটে খেয়ে বিশ্রাম নিলে তা অল্প দিনের মধ্যে ঠিক হয়ে যায়। এই সময় প্রচুর পরিমাণে শুদ্ধ পানীয় জল খেতে হবে এবং রোজ খাবারের মধ্যে ডাল ও সক্তি খেতে হবে। ৬||শরীরে রক্তাল্পতা আছে কিনা তা কীভাবে বোঝা যাবে ? উঃ চোখের নীচে অথবা নখের ডগা, জিভ, ইত্যাদির রং ফ্যাকাসে হয়ে গেলে রক্তাল্পতা হয়েছে বলে বোঝা যায় । সাধারণত গর্ভবতী থাকার সময় এটিবেশি হয়ে থাকে। শরীরে রক্তের মধ্যে লোহিতরক্ত কণিকার পরিমাণ যতটা থাকা দরকার, তার থেকে কমে গেলে তাকে রক্তাল্পতা বলে । ৭||গৰ্ভবতী মহিলাকে স্বাস্থকেন্দ্ৰে কত বার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে হবে? উঃ গর্ভবতী থাকার সময় কমপক্ষে প্রথম তিন মাসে একবার, দ্বিতীয় স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে হবে তিন মাসে একবার এবং শেষ তিন মাসে অন্তত দুই বার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে হবে । অর্থাৎ একজন স্বাভাবিক গর্ভবতী মাকে কমপক্ষে ৪ বার পরীক্ষা করাতে হবে। কেউ চাইলে বা দরকার পড়লে বেশি বার স্বাস্থ্য – কেন্দ্রে গিয়ে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাতে পারেন। এই স্বাস্থ্য কনা, ব্লাড প্রেসার বা রক্তচাপ বেশি বা কম আছে কনা, গর্ভবতীর ওজন ঠিকমতো বাড়ছে কিনা, গর্ভস্থ শিশুর অবস্থা কী রকম ইত্যাদি । এই সকল স্বাস্থ্য ১ পরীক্ষা স্বাস্থ কেন্দ্রে বিনামূল্যে করা হয়।

তাহলে ভাই ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন TrickTuneBD.Com এর সাথে থাকুন।ধন্যবাদ ।

1 year ago (February 15, 2020) 329 Views
Report  

About Author (11)

Author

আমি যা জানি না তা TrickTuneBD থেকে জেনে নেই । আর আমি যা জানি তা TrickTuneBD তে শেয়ার করি।

One thought on "স্বাস্থের জন্য কিছু প্রশ্ন ও উত্তর। আপনাদের কাজে আসবে।"

  1. TrickTuneBD Administrator says:

    ধন্যবাদ

Leave a Reply

Related Posts